মাদারীপুরে পুলিশ হত্যার রায়, ২০ ‘চরমপন্থির’ যাবজ্জীবন

মাদারীপুরে পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) এক কর্মকর্তাসহ দুই জনকে হত্যার ঘটনায় ১৩ বছর পর রায় ঘোষণা করেছে ঢাকার তিন নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল।

রায়ে চরমপন্থি দল সর্বহারা পার্টির ২০ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ছয় জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

১২ ডিসেম্বর, বুধবার এই মামলার রায় ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মনির কামাল।

রায়ের পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, ‘দুষ্টের দমন আর শিষ্টের পালন করে কল্যাণমুখী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় পুলিশ ভূমিকা রাখে। তারা জরুরি সেবা দেয়, জনগণের সঙ্গে রাষ্ট্রের সেতুবন্ধ তৈরি করে। অথচ সর্বহারা নামের এই উচ্ছৃঙ্খল সন্ত্রাসীরা পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে। ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা জন্য এই বিচার করেছি।’

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৫ সালের ৩ এপ্রিল রাতে মাদারীপুর এসবির উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাসনাইন আজম খান এবং প্রধান অফিস সহকারী মো. কামরুল আলম খানকে হত্যা করে লাশ টুকরো টুকরো করে কুমার নদে ভাসিয়ে দেয় সর্বহারা পার্টির সদস্যরা।

হাসনাইন আজম ও কামরুল আলম কর্মস্থলে দুই দিন অনুপস্থিত থাকায় এবং তাদের কোনো খোঁজ না পাওয়ায় রাজৈর থানায় মামলা করেন মাদারীপুরের এসবির তৎকালীন পরির্দশক আবুল খায়ের মিয়া।

তদন্ত শেষে ২০০৭ সালের ৬ অগাস্ট ৩২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেন রাজৈর থানার পুলিশ পরিদর্শক একরাম আলী মোল্লা। তাদের মধ্যে চার জন বিভিন্ন সময় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। এ ছাড়া অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন আরও দুই জন।

Facebook Comments